1. mizanurrahmanbadol2@gmail.com : Chaloman Shomoy : Chaloman Shomoy
  2. arasif1989@gmail.com : jony :
  3. mashiur2k@gmail.com : mashiur :
  4. trustit24@gmail.com : Admin panel : Admin panel
  5. chalomanshomoy@gmail.com : Polash News : Polash News
  6. info@chalomanshomoy.com : suvash :
পশ্চিম ইউরোপে বন্যায় মৃতের সংখ্যা ১৭০জন - চলমান সময়
August 2, 2021, 3:32 pm

পশ্চিম ইউরোপে বন্যায় মৃতের সংখ্যা ১৭০জন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, চলমান সময়
  • আপডেট সময় : রবিবার, জুলাই ১৮, ২০২১
  • 39 Time View

পশ্চিম ইউরোপের মানুষ গত ৫০ বছরেও এমন বন্যা পরিস্থিতি দেখেননি। ভয়াবহ বন্যায় মৃতের সংখ্যা এখন পর্যন্ত ১৭০; নিখোঁজ রয়েছেন আরও অনেকে। বন্যাদুর্গত অঞ্চলে এখনও উদ্ধার কাজ চলছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

টানা কয়েকদিনের রেকর্ড পরিমাণ বর্ষণে জার্মানি, নেদারল্যান্ডস ও বেলজিয়ামের বহু এলাকা পানিতে তলিয়ে গেছে। বিধ্বস্ত হয়েছে বহু ঘরবাড়ি। বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে বহু এলাকা। আরও বেশ কয়েকটি বাঁধ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। সবচেয়ে শোচনীয় অবস্থা জার্মানিতে। দেশটিতে বন্যায় এখন পর্যন্ত ১৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে, জার্মানি ও বেলজিয়ামের বন্যাদুর্গত কয়েকটি এলাকা থেকে পানি নামতে শুরু করায় অনেকে বাড়ি ফিরতে শুরু করেছেন আশ্রয় কেন্দ্র থেকে। তবে এখনও কয়েক হাজার মানুষ বাড়িঘর ছেড়ে বাস করছেন অন্যত্র।

প্রায় এক লাখ মানুষ বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় রয়েছে বিভিন্ন বন্যাকবলিত এলাকায়। বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু করতে আরও সময় লাগবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। রয়েছে গ্যাস ও পানির সংকটও।

বন্যায় উদ্বাস্তু হয়ে পড়েছে পশ্চিম ইউরোপের কয়েক হাজার মানুষ। পানি নেমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আরও স্পষ্ট হচ্ছে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ। তবে নিখোঁজদের সন্ধানে এখনও উদ্ধার কাজ চলছে। উদ্ধার কাজ পরিচালনা করছেন ৩ বাহিনীর সদস্যরা।

এদিকে, আকস্মিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের সব ধরণের সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মেরকেল। এর আগে বার্লিন থেকে জার্মানির প্রেসিডেন্ট বলেন, পুরো জার্মানি বন্যাদুর্গতদের পাশে রয়েছে। তিনি আরও বলেন, ‘প্রকৃতির এই তাণ্ডব আমাকে স্তম্ভিত করেছে।’

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জলবায়ুর পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাবে এমন বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। যদিও এর আগে এমন পরিস্থিতির জন্য বারবার সতর্কও করেছেন তারা।

সংবাদটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *